আমি মোটা হব কিভাবে – ১০টি মোটা হওয়ার সহজ উপায়

মোটা হওয়ার জন্য আমরা বিভিন্ন পন্থা অবলম্বন করে থাকি যেগুলো অনেকটা আমাদের শরীরের জন্য ক্ষতিকর রূপ ধারণ করে আবার কিছু কিছু জিনিস আমাদের শরীরের জন্য বেমানান অথবা মানানসই হয়েও থাকে। আমি মোটা হব কিভাবে এ ধরনের প্রশ্নে আমরা সাধারণত শরীরের কোন পার্শ্বপ্রক্রিয়া ছাড়াই ভালো উপায়গুলো জানিয়ে থাকি।

স্বাস্থ্যবান হলে যেমন নিজের কাছে অস্বস্তি মনে হয়, তেমনি অতিরিক্ত চিকন হলেও দেখতে অনেকটা বেমানান মনে হয়। এজন্য অনেকেই মোটা হওয়ার জন্য বিভিন্ন পন্থা অবলম্বন করে থাকেন। বয়স আর উচ্চতার তুলনায় ওজন কম হওয়া বা আন্ডার ওয়েট হওয়া কিন্তু খুবই সমস্যার একটা ব্যাপার। আজকে আপনাদের জানাবো মোটা হওয়ার সহজ উপায় সম্পর্কে কয়েকটি কার্যকারী টিপস।

মোটা হওয়ার সহজ উপায়

কোন সমস্যার সমাধান জানার আগে এই সমস্যার কারণ গুলো সম্পর্কে আপনাকে অবশ্যই অবগত থাকতে হবে। আমি মোটা হব কিভাবে এটা জানার আগে চলুন কয়েকটি ওজন কম হওয়ার কারণ সম্পর্কে জেনে আসি। মূলত বিভিন্ন কারণে আমাদের শরীরের ওজন বয়স এবং শরীর বিদ্বে কম হতে পারে। তবে এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য কয়েকটি বড় কারণ থাকতে পারে আপনার শরীরে।

ওজন কম কেন হয়?

যেটা আগেই বলেছিলাম বিভিন্ন কারণ-অকারণে আপনার শরীরে ওজন কম হতে পারে। নিয়মিত খাদ্যে সমস্যা থাকলে, জেনেটিক কারণ, ডায়রিয়া, ক্যান্সার, মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা, এইডস, ডায়াবেটিস, অর্থুইটিস, যক্ষা এবং কিডনির সমস্যা সহ আরো বিভিন্ন সমস্যার জন্য ওজন কমবেশি হয়ে থাকে। ওজন বাড়ানোর ক্ষেত্রে এই কারণগুলোর দিকে আপনার লক্ষ্য রাখা অত্যন্ত জরুরি।

►► কিভাবে স্ত্রীর মন জয় করা যায়
►► কিভাবে লম্বা হওয়া যায়

আমি মোটা হব কিভাবে?

মোটা হওয়ার সহজ উপায় গুলো সম্পর্কে আমরা এখন আপনাদের সাথে আলোচনা করব। ব্যায়াম করা, খাবারে কার্বোহাইড্রেড, অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ, ক্যালরি যুক্ত খাবার, প্রোটিন যুক্ত খাবার, ড্রাই ফুডস খাবার, টেনশন মুক্ত জীবন, নিয়মিত ঘুম, ঘুমানোর পূর্বে মধু খাওয়া এবং ডায়েট জাতীয় চকলেট খাওয়া।

মূলত এই খাবারগুলো আপনাকে অনেকটা সহযোগিতা করবে শরীরের স্বাস্থ্য বৃদ্ধি করায়। তাহলে চলুন আমরা প্রত্যেকটা বিষয়কে নিয়ে আলাদাভাবে প্রতিস্থাপন করি যাতে আপনি বুঝতে পারেন কোন খাবারের প্রক্রিয়া এবং উপকারিতা কেমন কি।

(১) নিয়মিত ব্যায়াম করা

মোটা হওয়ার সহজ উপায়

নিয়মিত ব্যায়াম করলে আমরা জানি শরীরের অনেক উপকারিতা হয়ে থাকে। সেই সাথে আপনার শরীরের অচল অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সচল হতে থাকে। আমি মোটা হব কিভাবে এই প্রশ্নের সঠিক একটা সমাধান হচ্ছে ব্যায়াম করা। নিয়মিত ব্যায়াম করার ফলে আপনার শরীরের সকল অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ গুলো ধীরে ধীরে সচল হতে থাকে এবং তা নিয়মিত বৃদ্ধি পেতে থাকে।

তবে অনেকেই ঘুম থেকে উঠে বিছানায় ব্যায়াম করা শুরু করেন, মনে রাখবেন লম্বা সময় ঘুমের মধ্যে পার করার পরে হঠাৎ করে উঠে ভারী কোন বস্তু দ্বারা ব্যায়াম না করাই উত্তম। কারণ, ব্যায়াম করার জন্য শরীরের পর্যাপ্ত এলার্জি থাকা প্রয়োজন যা ঘুম থেকে উঠেই আমাদের শরীরে এনার্জি আসেনা।

ভোরবেলা ব্যায়াম করার পরিকল্পনা থাকলে আগের দিন সব কাজকর্ম দ্রুত শেষ করে তাড়াতাড়ি শুয়ে পড়ুন। ৭-৮ ঘন্টা ঘুমানোর পর নির্দিষ্ট সময় অপেক্ষা করে ব্যায়াম করতে পারেন। ব্যায়াম করার সময় আপনার শরীরের উপর অতিরিক্ত চাপ প্রয়োগ হতে পারে তাই ঘুম থেকে উঠেই কখনো ব্যায়াম করার পরিকল্পনা করবেন না।

(২) অতিরিক্ত খাবার গ্রহণ করা

আমি মোটা হব কিভাবে

বারবার খাবার গ্রহণ করা সবার জন্যই দরকার। অন্তত প্রতি ২ ঘণ্টা পরপর অল্প অল্প খাবার গ্রহণ করা উচিত। এতে আমাদের শরীল সবসময় সচল থাকে এবং আমাদের শরীরের এনার্জিপ্যাক নিয়মিত পাওয়ার বৃদ্ধি করে। সাধারণত সবার ক্ষেত্রে দিনের বেলা অনেকবার খাওয়ার আগ্রহ হতে পারে। তাই খাওয়ার আগ্রহ হওয়া মাত্রই তার কোন কিছু খাওয়া উচিত যাতে তার শরীরের এনার্জি এবং প্রোটিন বৃদ্ধি পায়।

আমি মোটা হব কিভাবে এই টিপসের মধ্যে আপনি বারবার খাবার গ্রহণ করে সফল হতে পারেন। যারা ওজন বৃদ্ধি করতে চাচ্ছেন তারা নিয়মিত ২ ঘন্টা পর পর খাবার গ্রহণ করুন। আপনার খাবারের লিস্টে থাকতে পারে এমন খাবারগুলো হচ্ছে: দুধ, দই, ফল, সানা ইত্যাদি নিয়ে গঠন করা খাবার।

খাবারগুলো খাওয়ার ফলে আপনার শরীরে পুষ্টির পাশাপাশি ওজন বৃদ্ধি করবে। এটি মোটা হওয়ার জন্য আপনাকে অনেক বেশি সহায়তা করবে। যারা কোন পার্শ্বপ্রক্রিয়া ছাড়াই শরীরের ওজন বৃদ্ধি করতে চান এবং মোটা হতে চান তাদের জন্য এই খাবারগুলো খুবই প্রয়োজনীয়। তাহলে যারা মোটা হতে চান তারা এই টিপস অবলম্বন করতে পারেন।

(৩) খাবারে কার্বোহাইড্রেট রাখুন

আমি মোটা হব কিভাবে

কার্বোহাইড্রেট এর কাজ হচ্ছে জীবদেহের শক্তির প্রধান উৎস হিসেবে কাজ করা। অর্থাৎ আপনার শরীরে শক্তি জোগাতে অনেক বেশি সহযোগিতা করে কার্বোহাইড্রেট। আমি মোটা হব কিভাবে সেই প্রশ্নের আরও একটি উত্তর হচ্ছে খাবারে কার্বোহাইড্রেট রাখা। খাবারে কার্বোহাইড্রেট রাখার ফলে আপনার দেহের পুষ্টিগুণ নিয়মিত বাড়তে থাকে। এমনকি উদ্ভিদের সাপোর্টিং টিস্যুর গাঠনিক উপাদান হিসেবে কাজ করে কার্বোহাইড্রেট।

কার্বোহাইড্রেট খাবারগুলো হচ্ছে: দই, গাজর, মিষ্টি আলু, ভুট্টা, কুইনোয়া, বাদামী চালের ভাত, কলা, আম, আপেল এবং মসুর ডাল। কার্বোহাইড্রেট যুক্ত এই খাবারগুলো আপনার শরীরে ওজন বাড়াতে অনেক বেশি সহযোগিতা করে থাকে। সেই সাথে এই খাবারগুলো নিয়মিত আপনার শরীরকে সতেজ এবং মোটা করে।

যাদের উদ্দেশ্য শরীরের ওজন বৃদ্ধি করা এবং মোটা হওয়া, তাদের জন্য কার্বোহাইড্রেট খাবার গুলো খুবই প্রয়োজনীয়। এর মধ্যে ভাত ও রুটি কার্বোহাইড্রেট এর প্রধান উৎস। তাই প্রত্যেকদিন অন্তত দুইবার কার্বোহাইড্রেট খাবেন। আপনাকে কিন্তু অতিরিক্ত ফ্ল্যাটের দিকেও লক্ষ্য রেখে খাবারগুলো গ্রহণ করতে হবে। পরিমিত খাবেন সাধারণের তুলনায় কিছুটা বেশি। মনে রাখবেন, মোটা হওয়ার সহজ উপায় গুলোর মধ্যে এটা অন্যতম।

(৪) বেশি ক্যালরিযুক্ত খাবার গ্রহণ

বেশি ক্যালরিযুক্ত খাবার গ্রহণ

বেশি বেশি ক্যালরিযুক্ত খাবার খাওয়ার গ্রহণ করতে হবে যদি আপনার টার্গেট থাকে শরীরে ওজন বৃদ্ধি করা এবং মোটা হওয়া। ওজন বৃদ্ধির লক্ষ্যে শরীরের চাহিদার তুলনায় বেশি ক্যালোরি গ্রহণ করুন। ওজন এবং দ্রুত মোটা হতে চাইলে প্রত্যেকদিন দিনে ৬০০-৭০০ ক্যালরি বেশি গ্রহণ করতে হবে। আর যদি ওজন আস্তে আস্তে বৃদ্ধি করতে চান সেক্ষেত্রে প্রত্যেকদিন ৪০০-৫০০ ক্যালোরি গ্রহণ করলেই হয়ে যাবে।

এভাবে আপনি সপ্তাহখানেক করলে আপনার ওজন বৃদ্ধি হয়েছে কিনা তা আপনি উপলব্ধি করতে পারবেন। সাধারণত একজন প্রাপ্তবয়স্ক নারীর প্রত্যেক দিন ১৬০০-২৪০০ পর্যন্ত ক্যালোরি গ্রহণ করা উচিত। একইভাবে একজন পুরুষের ২০০০-৩০০০ ক্যালোরি গ্রহণ করা উচিত। একটি বাচ্চার ক্যালোরি ইনটেক প্রত্যেকদিন ১০০০ ক্যালোরি। এভাবে পরিমিত ক্যালোরি গ্রহণ করার ফলে আপনাকে মোটা করতে আরও বেশি সহযোগিতা করবে।

আমি মোটা হব কিভাবে সেই প্রশ্নের অন্যতম একটি কার্যকারী টিপস হচ্ছে ক্যালরিযুক্ত খাবার গ্রহণ করা এবং পরিমিত ক্যালোরি থেকে একটু বেশি ক্যালরি গ্রহণ করা উচিত যদি আপনার টার্গেট হয়ে থাকে মোটা হওয়া অথবা শরীরে ওজন বৃদ্ধি করা। মোটা হওয়ার সহজ উপায় এটি, তাই সপ্তাহখানেক আপনি এটি কার্যকর রাখুন দেখবেন আপনি নিজেই এর পরিবর্তন বুঝতে পারবেন।

(৫) প্রোটিন গ্রহণের সঠিক পদ্ধতি

প্রোটিন গ্রহণের সঠিক পদ্ধতি

ওজন বৃদ্ধি করতে শুধুমাত্র ক্যালোরি অথবা কার্বোহাইড্রেট যথেষ্ট নয়। ওজন বৃদ্ধি করার জন্য ক্যালরির পাশাপাশি সঠিকভাবে সঠিক পদ্ধতিতে প্রোটিন গ্রহণ করতে হবে। সঠিক প্রোটিন গ্রহণ না করলে ক্যালরি বাড়তি ফ্যাটের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাই প্রতিদিন খাবারের তালিকায় প্রোটিন জাতীয় খাবার গুলো রাখতেই হবে।

প্রোটিন জাতীয় খাবার গুলো হচ্ছে: মাংস, ডিম, চিংড়ি মাছ, দুধ, দই, মাছ, টার্কি মুরগি, কলিজা, শুটকি মাছ, আলু, ডাল, অটোস, বাদাম, পেয়ারা, মিষ্টি কুমড়ার বীজ, সয়াবিন, সিমের বীজ, এভোক্যাডো, জব সহ আরো বেশ কিছু ক্যালরিযুক্ত খাবার রয়েছে। মূলত এই খাবারগুলো আপনার শরীরে প্রোটিন জোগাতে অনেক বেশি সহায়তা করে থাকে। তাই ক্যালোরি নেয়ার পাশাপাশি প্রোটিন গ্রহণ করার জন্য এই খাবারগুলো নিয়মিত খান।

আপনার দেহের ওজন বৃদ্ধি এবং মোটা হওয়াতে প্রোটিনযুক্ত খাবার সব সময় সহযোগিতা করে। প্রোটিন পাউডারের কোন ঝুড়ি নেই, কারণ প্রোটিন পাউডার আপনার দেহের ওজন দ্রুত পরিমাণে বাড়িয়ে তুলতে পারে। প্রোটিন পাউডার এ রয়েছে তিন ধরনের প্রোটিন। মনে রাখবেন, প্রোটিন আমাদের দেহের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। প্রোটিন যুক্ত খাবার আপনার দেহকে শক্তিশালী করতে সহায়তা করে।

(৬) ড্রাই ফ্রুটস খাবার খাওয়া

ড্রাই ফ্রুটস খাবার খাওয়া

আমরা আলোচনা করতেছিলাম মোটা হওয়ার সহজ উপায় গুলো নিয়ে। আমি মোটা হবো কিভাবে সেই প্রশ্নের উত্তরে ইতিমধ্যে আমরা বেশ কয়েকটি কার্যকরী মাধ্যম সম্পর্কে আলোচনা করেছি। মনে রাখবেন, মোটা হওয়ার জন্য ড্রাই ফুডস খাবারগুলো অন্যতম উপাদান। এখন জানবো ড্রাই ফুড খাবার সমন্ধে কিছু তথ্য।

আপনারা জানেন যে, ড্রাই ফ্রুটসে আছে প্রচুর ক্যালরি ও ফ্যাট, যা ওজন বৃদ্ধিতে অনেক সহায়তা করে থাকে। প্রত্যেকদিন ঘুম থেকে উঠে মিনিমাম দুটি কাজু ও দুটি কিসমিস খাওয়া জরুরি। এইটা কিন্তু কোনভাবে ভুললে চলবে না অবশ্যই প্রত্যেকদিন এটি অভ্যাস করুন। তাছাড়া সকালের নাস্তায় রাখুন আমন্ড বা পেস্তা। ওজন বৃদ্ধিতে আপনার ডায়েট চার্টে বাদামের পরিমাণ বেশি রাখা খুব বেশি জরুরী। আর এভাবে নিয়ম মেনে ড্রাইভ ফ্রুটস খেলে দেখবেন এক মাসের মধ্যেই আপনার ওজন বৃদ্ধি হচ্ছে।

মনে রাখবেন, পুষ্টিবিদগণ ড্রাই ফ্রুটস খাবার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। পরিবারের ক্ষেত্রে তারা বলেন প্রতিদিন এক মুঠ করে খাবার জন্য। তবে এতে থাকা চর্বি ও ক্যালরির মাত্রার হিসাব রাখাটা অনেকটা জরুরী। ড্রাই ‌ফ্রুটস সরাসরি কিংবা সালাদের সঙ্গে মিশিয়ে যেভাবে খাওয়া হোক না কেন পুষ্টি উপাদানের দিক থেকে কিছুটা হারাবে না। খেয়াল রাখা জরুরী যে ড্রাই ফ্রুটস এর মধ্যে বিভিন্ন ধরনের ফল থাকতে হবে একই ফল থাকলে ড্রাই ফুডস এর উপাদান আপনি পাবেন না।

(৭) টেনশন মুক্ত জীবন যাপন

টেনশন মুক্ত জীবন যাপন

আমাদের লাইফে সুস্থ থাকতে এবং মস্তিষ্ক ঠান্ডা রাখতে পারলে টেনশন মুক্ত জীবন যাপন করতে পারা যায়। টেনশন মুক্ত থাকার উপায়: সব সমোচ্চার সবচেয়ে বড় কারণ হচ্ছে টেনশন। ওজন বৃদ্ধিতে যেমন টেনশন মুক্ত থাকা অনেক প্রয়োজন ঠিক তেমনি ওজন কমাতেও টেনশন মুক্ত থাকা খুবই আবশ্যক বলে মনে করে ডাক্তার। যদিও টেনশন মুক্ত থাকা খুবই কঠিন তবে অবশ্যই টেনশন মুক্ত থাকার চেষ্টা করতে হবে।

প্রত্যেকদিন ধ্যান বা মেডিটেশনের অভ্যাস আপনাকে অনেকটাই টেনশনমুক্ত করতে সহায়তা করবে। শ্বাসের আধান প্রধান কে নিয়ন্ত্রণ রেখে নানা ঘটনায় মনকে শান্ত থাকার অভ্যাস করতে হবে। আমি মোটা হব কিভাবে সেই টিপসের মধ্যে এটি অন্যতম একটি কার্যকারী টিপস। উপরে আলোচিত সব বিষয়গুলো যেমন গুরুত্বপূর্ণ ঠিক টেনশন মুক্ত থাকা ও আপনার শরীরের ওজন বৃদ্ধি করার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

খাবারের মেনুতে রাখুন স্বাস্থ্যকরেটর ফ্যাট ও পটাশিয়াম জাতীয় খাবার। অ্যাভোক্যাডো জাতীয় ফল রাখুন ডায়েটে টেনশন কমিয়ে ব্লাড প্রেসার কে নিয়ন্ত্রণে রাখে এই খাবার। মোটা হওয়ার সহজ উপায় গুলোর মধ্যে এটি অন্যতম ওয়েট কার্যকরী একটি টিপস তাই টেনশন মুক্ত থাকার চেষ্টা করতেই হবে আপনাকে। টেনশনমুক্ত যেমন আপনার জেনারেল লাইফ কি আরো উন্নতি করতে পারে ঠিক তেমনি টেনশনমুক্ত থাকলে আপনি আপনার শরীরের পরিবর্তন নিমিষে খেয়াল করতে পারবেন।

(৮) পরিমিত ঘুমের অভ্যাস করা

আমি মোটা হব কিভাবে

ঘুম সমস্যা সবার ক্ষেত্রেই কম বেশি হয়ে আছে। শরীর ঠিক রাখতে ঘুমের প্রয়োজনীয়তার বিকল্প কিছুই নেই। প্রত্যেকদিন ঘরে ৮ ঘন্টা একটা সাধারণ মানুষের জন্য ঘুমের প্রয়োজন হয়ে থাকে। মনে রাখবেন ৮ ঘন্টা এর থেকে ঘুমের পরিমাণ কম হওয়া যাবে না। প্রত্যেকদিন নিয়ম করে ইয়োগা বা যোগাসন করুন এতে আপনার শরীরের ওজন বৃদ্ধি পাবে সেই সাথে আপনার শরীর নিয়মিত মোটা হতে থাকবে।

উপরে আলোচিত টেনশনমুক্ত বিষয়টি আপনার অনেকটাই কমিয়ে আসতে পারে ঘুমের অভ্যাস থাকাতে। মনে রাখবেন, পর্যাপ্ত ঘুম আপনার সারাদিনের ক্লান্তি দূর করবে। ঘুমের ফলে চোখের সুস্থতা নিশ্চিত থাকে, শরীরের শক্তি সঞ্চয় করতে সহায়তা করে, অতিরিক্ত চুল পড়া রোধ করবে ঘুম, ক্ষুদামান দা দূর হবে। দুশ্চিন্তা দূর করে ঘুম এবং বিষন্নতা কেটে দেয়।

শরিলে হরমোন জড়িত নানা সমস্যার সমাধান ঘুমের মধ্যে হয়ে থাকে। পরিমিত ঘুম আমাদের শরীরের ক্ষতিকর কোষ নষ্ট হতে সাহায্য করে। শারীরিক ও মানসিক কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করে পরিমিত ঘুম থাকলে। তাহলে আমি মোটা হবো কিভাবে সেই প্রশ্নের আরো একটি উত্তরে আমাদের ঘুম জুড়ে দেয়া হল। পরিমিত ঘুমানোর ফলে আপনার স্বাস্থ্য বৃদ্ধি হবে এবং আপনি নিয়মিত এটি নিজেই পরিবর্তন লক্ষ্য করতে পারবেন।

(৯) ঘুমানোর আগে সুস্বাদু খাবার খাওয়া

আমি মোটা হব কিভাবে

ঘুমানোর পূর্বে এমন কিছু খাবার খেতে পারেন যা পুষ্টিকর এবং ক্যালরিযুক্ত। কারণ ঘুমিয়ে পড়ছেন বলে খরচ হচ্ছে না এবং পুরো রাত আপনার শরীরে ক্যালরির কাজ করবে এবং ওজন বৃদ্ধি করবে। তবে এই খাবারগুলো হতে পারে দুধ ও মধু মিশিয়ে খাওয়া। এটি ওজন বৃদ্ধিতে পরীক্ষিত এবং মোটা হওয়ার সহজ উপায়। নিয়মিত ঘুমানোর পূর্বে দ্রুত ও মধু মিশ্রিত খেয়ে নিন।

কেননা রাতে ঘুমের মধ্যে লম্বা সময় পানি শূন্য থাকায় বিপাকক্রিয়া তৈরি হয়ে থাকে। তাই সকালে কিছু খাওয়াবা পান করার আগ পর্যন্ত পানি পান করে নেওয়া উত্তম। এর ফলে পেট ফোলা ভাব কমা বেশি শক্তি অনুভব করা এবং খোদা হ্রাস পায়।

এমন নয় যে ঘুমিয়ে পড়লে হজম প্রক্রিয়া থেমে থাকে। আমি ঘুমিয়ে গেলে পেশীর সষ্ক্রশন প্রসারন স্বাভাবিকের থেকে মনথর হয়ে যেতে পারে। তাই ঘুমানোর আগে ভারী কোন খাবার খেলে তা অস্বস্তি তৈরি করতে পারে। নিয়মিত ঘুমানোর পূর্বে দুধ ও মধু খেতে পারেন এতে আপনার শরীরের ওজন বৃদ্ধি হবে এবং আপনার শরীরকে সুস্থ রাখবে।

(১০) ডায়েট চকলেট জাতীয় খাবার

আমি মোটা হব কিভাবে

সচারাচার বাইরের খাবার খেয়ে আমরা অনেকেই ক্লান্ত হয়ে পড়ি তাই বাহিরের খাবারগুলোকে আমরা প্রত্যাহার করে থাকি। কিন্তু ওজন বৃদ্ধিতে বাহিরের খাবার জরুরি হয়ে পড়ে আমাদের জন্য। যেমন: আইসক্রিম, পেজটি, বার্গার সহ আরো বিভিন্ন খাবার। যদিও এতে ফ্যাট থাকে বেশি খেলে শরীরের জন্য ভীষণ ক্ষতিকর তাই পরিমিত খেতে হবে। আপনার প্রতিদিনের ডায়েটে চকলেট এবং চিজ রাখতে পারেন।

ওজন বৃদ্ধি, হেরাস অথবা শারীরিক যে কোন কাজের ক্ষেত্রেই পানি অত্যন্ত জরুরি। প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে এবং নিয়ম করে এই মোটা হওয়ার সহজ উপায় লক্ষ্য করলেই আপনি ওজন বৃদ্ধি করে পাবেন সুন্দর স্বাস্থ্য। নিজের যত্ন নিতে হবে প্রত্যেক দিন।

চকলেটের ভালো ঘুম পেটে ডায়েট চকলেট খেতে পারেন, ডায়েট চকলেট টি যে ককুয়া গাছের বিচি থেকে তৈরি হয় সেটি এন্টিঅক্সিড সমৃদ্ধ হয়ে থাকে। ভালো মানের ডায়েট চকলেট যথেষ্ট পরিমাণে আইরন, কপার, আস জোগাড় দিয়ে থাকে। ঔ তাই নিয়মিত ডায়েট চার্টের মধ্যে ডায়েট চকলেট রাখতে পারেন।

►► উচ্চ রক্তচাপ কমানোর উপায়
►► শ্বাসকষ্ট হলে করণীয় কী?

নির্দেশনা বলি এবং সতর্কতা

যেহেতু স্বাস্থ্যবিদদের লক্ষ্যে আমরা এই খাবারগুলো খাব তাই অবশ্যই খাবারগুলো পরিমিত খেতে হবে। অনেক খাবার অতিরিক্ত খাবার ফলে আমাদের শরীর দিন দিন ভেঙ্গে যেতে পারে। তাই অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে কোন খাবার যেন অতিরিক্ত গ্রহণ করা না হয়। তবে তবে উপরে আরো চিত কিছু খাবার স্বাভাবিকের চেয়ে একটু বেশি খেতে হবে যদি আপনি দ্রুত শরীরের ওজন এবং শরীরকে মোটা করতে চান সেক্ষেত্রে।

নিয়মিত ক্যালরিযুক্ত খাবার এবং কার্বোটেড খাবারগুলো গ্রহণ করুন এতে আপনি খুব দ্রুত ফল পেয়ে থাকবেন। তবে খাবারগুলো খাওয়ার সময় অবশ্যই লক্ষ্য রাখুন যেন এগুলো অতিরিক্ত না হয়। পরিবারের চেয়ে অনেক বেশি খাওয়ার ফলে আপনার শরীরে নেগেটিভ ইফেক্ট আসতে পারে যাতে শরীর ভেঙে যেতে পারে অস্বস্তি হতে পারে এবং আপনি নিয়মিত অসুস্থ হয়ে থাকতে পারেন। অবশ্যই নিয়ম মেনে খাবার গ্রহণ করুন।

আমি মোটা হব কিভাবে তা জানিয়ে আমাদের আজকের আর্টিকেলটি এখানে সমাপ্ত ঘোষণা করছি। ইতিমধ্যে আপনাদের সাথে বেশ কিছু বিষয় নিয়ে আলোচনা করলাম। নিয়মিত সুস্থ থাকতে পরিমান মত খাবার গ্রহণ করুন এবং শরীরের যত্ন নিন।

স্বাস্থ্য টিপস বিষয়ক প্রশ্ন উত্তর

প্রশ্ন: দোকানে হ্যান্ড স্যানিটাইজার শেষ হয়ে গেলে কি করব ?

উত্তর: সাধারণ সাবান দিয়ে হাত ধুলেও কোভিড–১৯ থেকে সুরক্ষা সম্ভব। মনে রাখতে হবে আঙুলের ভাজে সামনে ও নখের চারপাশ ভালভাবে পরিষ্কার করা জরুরী।

প্রশ্ন: আক্রান্তদের সবাই কি গুরুতর অসুস্থ হয়ে মৃত্যু বরণ করতে পারে ?

উত্তর: আক্রান্তদের বেশিরভাগই সুস্থ হয়ে উঠেন, তবে আক্রান্তদের খুব অল্প সংখ্যক গুরুতর অসুস্থ হয়ে মৃত্যু বরণ করতে পারে।

প্রশ্ন: টেনশন মুক্ত জীবন যাপন কিভাবে? 

উত্তর: টেনশন মুক্ত জীবন যাপন করতে পরিমিত ঘুম এবং পরিমিত খাবারের প্রয়োজন রয়েছে।

প্রশ্ন: ঘুমানোর আগে সুস্বাদু খাবার খাওয়া জরুলি?

উত্তর: ঘুমানোর প্রস্তুতি নেয়ার পূর্বে দুধ এবং মধু মিশ্রিত খাবার খাওয়া শরীরের জন্য অনেক বেশি উপকারিতা।

অনুগ্রহ করে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন। আমাদের ফেসবুক পেইজ এ লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন

আর্টিকেল রিলেটেড ট্যাগ

  • টেনশন মুক্ত জীবন যাপন
  • ইসলামে মোটা হওয়ার উপায়
  • কি খেলে মোটা হব
  • সাত দিনে মোটা হওয়ার উপায়
  • মোটা হওয়ার ভিটামিন ক্যাপসুল
  • খেজুর খেলে কি মোটা হওয়া যায়
  • মোটা হওয়ার খাবার রুটিন
  • মোটা হওয়ার সাপ্লিমেন্ট
  • মোটা হওয়ার ঔষধের নাম
  • দ্রুত মোটা হওয়ার খাদ্য তালিকা
  • ইসলামে মোটা হওয়ার উপায়
  • মোটা হওয়ার ফর্মুলা
  • খেজুর খেলে কি মোটা হওয়া যায়
  • সাত দিনে মোটা হওয়ার উপায়
  • মোটা হওয়ার জন্য বাদাম
  • মোটা হওয়ার সহজ প্রাকৃতিক উপায়
  • মোটা হওয়ার ঔষধের নাম
  • ফ্যাটযুক্ত খাবার কি কি
  • নিম্ন ক্যালরিযুক্ত খাবার তালিকা
  • উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার তালিকা pdf
  • ৩০০০ ক্যালরির ডায়েট চার্ট
  • ওজন অনুযায়ী ক্যালরি চার্ট
  • লো ক্যালরি খাবার
  • ক্যালরি চার্ট PDF
  • ২৫০০ ক্যালরি ডায়েট চার্ট
  • প্রোটিন এর কাজ কি
  • প্রোটিন কাকে বলে
  • প্রোটিন বেশি খেলে কি হয়
  • প্রোটিন কয় প্রকার
  • প্রাণিজ প্রোটিন
  • প্রোটিন পাউডার
  • প্রোটিনের উপকারিতা

  • মিক্সড ড্রাই ফ্রুটস দাম
  • ড্রাই ফ্রুটস এর নাম
  • ড্রাই ফ্রুটস খাওয়ার সময়
  • মিক্স ড্রাই ফ্রুটস খাওয়ার নিয়ম
  • ড্রাই ফ্রুটস রেসিপি
  • ড্রাই ফ্রুটস খাওয়ার উপকারিতা
  • মিক্সড ড্রাই ফ্রুটস এর উপাদান
  • মিক্সড ড্রাই ফ্রুটস উপকারিতা
  • টেনশন দূর করার ঔষধের নাম
  • মন খারাপ থেকে মুক্তির উপায়
  • মানসিক চিন্তা দূর করার দোয়া
  • মানসিক টেনশন
  • হাইপার টেনশন থেকে মুক্তির উপায়
  • দুশ্চিন্তা থেকে মুক্তির ইসলামিক উপায়
  • টেনশন কি
  • দুশ্চিন্তা থেকে মুক্তির উপায়
  • ঘুম আসে না কেন
  • ঘুমের ওষুধ
  • ঘুমের হরমোন
  • রাতে ঘুম না আসার রোগের নাম
  • কোন ভিটামিনের অভাবে ঘুম কম হয়
  • ঘুমের ব্যায়াম
  • ঘুম বৃদ্ধির উপায়
  • রাতে ঘুম ভেঙ্গে যাওয়ার কারণ
  • তাড়াতাড়ি ঘুমানোর পদ্ধতি
  • ঘুম কমানোর খাবার
  • ঔষধ ছাড়া ঘুমানোর উপায়
  • Rate taratari ghumanor upay
  • কিভাবে ঘুমানো ভালো
  • ঘুম কী
  • মধু খেলে ঘুম
  • রাতে দ্রুত ঘুমানোর উপকারিতা
  • কালো চকলেট
  • প্রতিদিনের স্বাস্থ্য টিপস
  • মহিলাদের স্বাস্থ্য টিপস
  • স্বাস্থ্য টিপস বাংলা
  • শিশু স্বাস্থ্য টিপস
  • স্বাস্থ্য টিপস ছবি
  • সকালের স্বাস্থ্য টিপস
  • স্বাস্থ্য টিপস pdf
  • স্বাস্থ্য মোটা হওয়ার টিপস
  • কি ঔষধ খেলে মোটা হওয়া যায়
  • সাত দিনে মোটা হওয়ার উপায়
  • মোটা হওয়ার ভিটামিন ক্যাপসুল
  • খেজুর খেলে কি মোটা হওয়া যায়
  • মোটা হওয়ার ঔষধের নাম
  • মোটা হওয়ার জন্য প্রতিদিনের খাদ্য তালিকা
  • কোন ফল খেলে মানুষ মোটা হয়
  • কিভাবে মোটা হওয়া যায়
  • ইসলামে মোটা হওয়ার উপায়
  • মোটা হওয়ার ঔষধের নাম
  • মোটা হওয়ার প্রাকৃতিক ঔষধ
  • সাত দিনে মোটা হওয়ার উপায়
  • ৭ দিনে মোটা হওয়ার ঔষধ
  • মোটা হওয়ার সাপ্লিমেন্ট
  • মোটা হওয়ার খাবার রুটিন
  • মোটা হওয়ার ব্যায়াম
  • কি খেলে মোটা হওয়া যায়
  • ইসলামে মোটা হওয়ার উপায়
  • সাত দিনে মোটা হওয়ার উপায়
  • খেজুর খেলে কি মোটা হওয়া যায়
  • ৭ দিনে মোটা হওয়ার ঔষধ
  • মোটা হওয়ার সাপ্লিমেন্ট
  • মিষ্টি খেলে কি মোটা হওয়া যায়
  • মোটা হওয়ার ভিটামিন ক্যাপসুল

Leave a Comment

error: দুঃখিত! মার্ক হবে না..