করোনা VS পতিতা

পতিতাঃ ওই করোনা তুই চীন থুইয়া এদেশে আইলি কেন?

করোনাঃ আর বলিশ না, জন্মভূমির মানুষগুলোর চেহারা সব একরহম কোনডারে ধরি কোনডারে ছাড়ি নিজেই কনফিউজড তাই ভাবলাম তোগো দেশে যাই এহানে বহুরূপী মানুষ আছে তাই সহজে চিনতে পারমু কারে আগে কারে পরে ধরমু,তাই আসলাম

পতিতাঃ তা তুই এত কষ্ট দিয়া মানুষেরে মারস কেন? একপক্ষ একটা মানুষ কত কষ্ট পায়!


আরো পড়ুণ: paragraph: May Dayবাংলা অর্থসহ

আরো পড়ুণ: paragraph: Load-shedding (বাংলা অর্থসহ)


করোনাঃ তোর লগে মোর এই যায়গাইতো পার্থক্য, তুই তোর স্বজাতিগো দিনেরপর দিন না থুক্কু রাতের পর রাত আনন্দ দিয়া বাঁচার স্বাদ দেও আর আমি দিনের পর রাতের পর সবসময় কষ্ট দিয়া মৃত্যুর দুয়ারে লইয়া ছাড়ি।

পতিতাঃ তয় তুই ভালো মানষেরে ধরো কেন? তাগো ছাইড়া খালি শয়তান গুলারে ধর!

করোনা VS পতিতা

করোনাঃ ফ্যাসিস্ট রাষ্ট্রে থাইকা তুই যা বুঝলি না আমি সেটা আইতে আইতেই বুইঝা হালাইছি!

শোন, আমার টার্গেট মুষ্টিমেয় কিন্তু সবাইরে বুঝাইতে হইবো আমি সব জনতার জন্য সমান তাই ১/২% ভালো মানুষকেও ধরতে হচ্ছে এটা আমার পরিবর্তীত চরিত্র

পতিতাঃ তয় এত লক্ষ লক্ষ মানুষ কি সব শয়তান? তাদের প্রাণ কেনো নিতেছিস?

করোনাঃ লক্ষ প্রাণের বিনিময়েই সকল সত্য প্রতিষ্ঠিত হয়, মুষ্টিমেয় বা ব্যক্তিবিশেষের জন্য নয়।

ওগো মরার মধ্য দিয়াই তো সেই সত্যের প্রতিষ্ঠা হবে, সবাই দেখুক, শিখুক জানুক সেই সত্যকে।

যে স্বজন-পরিজনের জন্য প্রকৃতি, দেশ, মা-মাটি,পৃথিবীর সব স্বার্থকে উপেক্ষা করে কেবল নিজের জন্য ছুটছে আজ মৃত্যু শয্যায় তার পাশে কেউ থাকবে না! সব প্রিয় জনের কাছে সে হবে অচ্ছুৎ।

পতিতাঃ ভাই👀না বোন👀 কি বলে ডাকব তোকে বুঝতেছি না। তুই যেমনি হও আপত্তি নাই তুই মানুষেরে এবার রেহাই দে।

আমি জীবনের তাগিদে মাঝরাতে জেগে থাকি আমার মত কোটি কোটি জনতা পেটের দায়ে মরণাপন্ন আর এই মৃত্যুর মিছিল তোর আঘাতে মৃতের চেয়েও দীর্ঘ হবে তাই তোর কাছে জোর হাতে মিনতি তুই ফিরে যা।
করোনাঃ এই ছলনাময়ী বাঙালি নারী আমাকে বিভ্রান্ত করিস না যা আমি কথা দিলাম তোর মিনতি ভেবে দেখব

একান্তে, আঁধারে সকলের প্রিয় পেশার নামটি প্রকাশ্যে সামাজিক মাধ্যমে লেখার জন্য ক্ষমা প্রার্থী তবে গল্পের স্বার্থে করতে হয়েছে তাই ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখার অনুরোধ রইলো।

লেখকঃ কিশোর চন্দ্র বালা

যুক্ত হোন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলেও এখান ক্লিক করুণ।

Leave a Comment