ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম

অনলাইনে ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম ২০২২ | Driving License

ড্রাইভিং লাইসেন্স বর্তমান সময়ে প্রয়োজন হয়না এমন মানুষের সংখ্যা খুবই কম।আপনার যদি একটি গাড়ি থাকে তাহলে সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ এর ০৪ ধারা অনুযায়ী ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকা বাধ্যতামূলক। এক্ষেত্রে যদি আপনার ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকে তাহলে আপনাকে উক্ত আইনের ৬৬ ধারা মোতাবেক ০৬ মাসের করাদন্ড বা অনধিক ২৫ (পঁচিশ) হাজার টাকা অর্থদন্ড বা উভয় দন্ডে দন্ডিত হবেন। তাই এখন থেকে আপনারা ঘরে বসে আপনি নিজেই অনলাইনে ড্রাইভিং লাইসেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারবেন। আসুন দেখে নেওয়া যাক ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম সমূহঃ

  নিম্নোক্ত ধাপগুলো যথাযথভাবে অনুসরণ পূর্বক আপনাকে অনলাইনে ড্রাইভিং লাইসেন্স করার জন্য আবেদন করতে হবে –

  • প্রথমত ড্রাইভিং লাইসেন্সের পূর্বশর্ত হলো লার্নার বা শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স।
  • ড্রাইভিং লাইসেন্সের আবেদনকারীর ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা ৮ম শ্রেণী পাশ।
  • অপেশাদার এর জন্য ন্যূনতম ১৮ বছর এবং পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স (Professional driving license) -এর জন্য বয়স ন্যূনতম ২১ বছর হতে হবে।
  • মানসিক ও শারীরিকভাবে সুস্থ থাকতে হবে।

►► আরো দেখো: গাড়ি ব্রেক ফেল করলে করনীয় কী?
►► আরো দেখো: গাড়ি চালানোর জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র কি কি?

অনলাইনে ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম ২০২২ –

Rules for getting an online driving license 2022

আপনি সর্বপ্রথম লার্নার বা শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স-এর জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ অনলাইনে (bsp.brta.gov.bd)-এর মধ্যমে আবেদন করবেন। অনলাইন সিস্টেম থেকে আপনার লার্নার বা শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স ইস্যু হবে এবং আপনি সাথে সাথেই সিস্টেম থেকেই আপনার শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রিন্ট করে নিতে পারবেন। এরপর ২/৩ মাস প্রশিক্ষণ গ্রহণের পর আপনাকে নির্ধারিত তারিখ ও সময়ে নির্ধারিত কেন্দ্রে লিখিত, মৌখিক ও ফিল্ড টেস্ট-এ অংশ গ্রহণ করতে হবে। এসময় আপনাকে প্রয়োজনীয় প্রমাণক, আপনার লার্নার বা শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স (মূল কপি) ও লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য কলম সাথে আনতে হবে।

আরো পড়ুন:  All HTML Tags লিস্ট বাংলা

লার্নার বা শিক্ষানবিশ ড্রাইভিং লাইসেন্স এর জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্রঃ

Documents required for learner or apprentice driving license:

  • নির্ধারিত ফরমে অনলাইনে আবেদন। (ফরমের জন্য এখানে ক্লিক করুন)
  • আবেদনকারীর ছবি [ছবির সাইজ সর্বোচ্চ ১৫০ কেবি (৩০০ x ৩০০ পিক্সেল)]
  • রেজিষ্টার্ড ডাক্তার কর্তৃক মেডিকেল সার্টিফিকেট (Medical certificate) (সর্বোচ্চ ৬০০কে.বি)। [মেডিক্যাল সার্টিফিকেটের ফর্মের জন্য এখানে ক্লিক করুন]
  • জাতীয় পরিচয়পত্রের স্ক্যান কপি (সর্বোচ্চ ৬০০কে.বি)
  • ইউটিলিটি বিলের স্ক্যান কপি (সর্বোচ্চ ৬০০কে.বি), [আবেদনকারীর বর্তমান ঠিকানা এবং জাতীয় পরিচয়পত্রের ঠিকানা যদি ভিন্ন হয় তবে বর্তমান ঠিকানার ইউটিলিটি বিল সংযুক্ত করতে হবে]
  • বিদ্যমান ড্রাইভিং লাইসেন্সের স্ক্যান কপি [ ড্রাইভিং লাইসেন্সের নবায়ন/শ্রেণী পরিবর্তন/শ্রেণী সংযোজন/ লাইসেন্সের ধরণ পরিবর্তণের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য] (সর্বোচ্চ ৬০০কে.বি)
  • অনলাইনে আবেদন দাখিলের সময় ভুয়া তথ্য প্রদান করা হলে তার লার্নার ড্রাইভিং লাইসেন্স ও স্মার্ট কার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স বাতিলসহ তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
  • নির্ধারিত ফী, (১) ক্যাটাগরি-৩৪৫/-টাকা ও (২) ক্যাটাগরি-৫১৮/-টাকা অনলাইনে পরিশোধ করতে হবে।

লিখিত, মৌখিক ও ফিল্ড টেস্ট পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর আপনাকে পুনরায় একটি নির্ধারিত ফরমে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও ফী প্রদান করে স্মার্টকার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স (Smartcard driving license)-এর জন্য সংশিস্নষ্ট সার্কেল অফিসে আবেদন করতে হবে। আপনার বায়োমেট্রিক্স (ডিজিটাল ছবি, ডিজিটাল স্বাক্ষর ও আঙ্গুলের ছাপ) গ্রহণপূর্বক স্মার্ট কার্ড ইস্যু করা হবে। স্মার্ট কার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রিন্টিং সম্পন্ন হলে আপনাকে এসএমএস (SMS) এর মাধ্যমে তা গ্রহণের বিষয়টি আপনাকে জানিয়ে দেয়া হবে। (অনলাইনে ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম ২০২২)

আরো পড়ুন:  যৌন মিলন করার পূর্বে কি করবেন

 স্মার্টকার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স-এর জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্রঃ

Documents required for smart card driving license:

  • নির্ধারিত ফরমে আবেদন।
  • রেজিষ্টার্ড ডাক্তার কর্তৃক মেডিকেল সার্টিফিকেট।
  • ন্যাশনাল আইডি কার্ড এর সত্যায়িত ফটোকপি।
  • নির্ধারিত ফী (পেশাদার- ১৬৭৯/-টাকা ও অপেশাদার- ২৫৪২/-টাকা) বিআরটিএ’র নির্ধারিত ব্যাংকে জমাদানের রশিদ।
  • পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স-এর জন্য পুলিশি তদন্ত প্রতিবেদন।
  • সদ্য তোলা ১ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি।

পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্সের প্রকৃতিঃ

Nature of professional driving license

(১) পেশাদার হালকা (মোটরযানের ওজন ২৫০০কেজি-এর নিচে) ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য প্রার্থীর বয়স কমপক্ষে ২০ বছর হতে হবে।

(২) পেশাদার মধ্যম (মোটরযানের ওজন ২৫০০ থেকে ৬৫০০ কেজি) ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য প্রার্থীর বয়স কমপক্ষে ২৩ বছর হতে হবে এবং পেশাদার হালকা ড্রাইভিং লাইসেন্সের ব্যবহার কমপক্ষে ০৩ বছর হতে হবে।

(৩) পেশাদার ভারী (মোটরযানের ওজন ৬৫০০ কেজির বেশী) ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য প্রার্থীর বয়স কমপক্ষে ২৬ বছর হতে হবে এবং পেশাদার মধ্যম ড্রাইভিং লাইসেন্সের ব্যবহার কমপক্ষে ০৩ বছর হতে হবে।

বি:দ্র: পেশাদার ভারী ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রাপ্তির জন্য প্রার্থীকে প্রথমে হালাকা ড্রাইভিং লাইসেন্স নিতে হবে এর ন্যূনতম তিন বছর পর তিনি পেশাদার মিডিয়াম ড্রাইভিং লাইসেন্স-এর জন্য আবেদন করতে পারবেন এবং মিডিয়ম ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার কমপক্ষে ০৩ (তিন) বছর পর ভারী ড্রাইভিং লাইসেন্স-এর জন্য আবেদন করতে পারবেন।

ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়ন প্রক্রিয়া:

Driving License Renewal Process:

অপেশাদারঃ

আপনাকে প্রথমে নির্ধারিত ফি (মেয়াদোত্তীর্ণের ১৫ দিনের মধ্যে হলে ২৪২৭/- টাকা ও মেয়াদোত্তীর্ণের ১৫ দিন পরে প্রতি বছর ২৩০/- টাকা জরিমানাসহ) জমা দিয়ে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ বিআরটিএর নির্দিষ্ট সার্কেল অফিসে আবেদন করতে হবে। আবেদনপত্র ও সংযুক্ত কাগজপত্র সঠিক পাওয়া গেলে একইদিনে গ্রাহকের বায়োমেট্রিক্স (ডিজিটাল ছবি, ডিজিটাল স্বাক্ষর ও আঙ্গুলের ছাপ) গ্রহণ করা হয়। স্মার্ট কার্ড wপ্রিন্টিং সম্পন্ন হলে আপনাকে এসএমএস (SMS) এর মাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হবে। (অনলাইনে ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম ২০২২)

আরো পড়ুন:  হেলাল হাফিজ এর জবনী:

পেশাদারঃ

পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্সধারীদেরকে পুনরায় একটি ব্যবহারিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। পরীক্ষায় উত্ত্তীর্ণ হওয়ার পর নির্ধারিত ফি ( মেয়াদোত্তীর্ণের ১৫ দিনের মধ্যে হলে ১৫৬৫/- টাকা ও মেয়াদোত্তীর্ণের ১৫ দিন পরে প্রতি বছর ২৩০/- টাকা জরিমানাসহ ) জমা দিয়ে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ বিআরটিএর নির্দিষ্ট সার্কেল অফিসে আবেদন করতে হবে। গ্রাহকের বায়োমেট্রিক্স (ডিজিটাল ছবি, ডিজিটাল স্বাক্ষর ও আঙ্গুলের ছাপ) গ্রহণের জন্য গ্রাহককে নির্দিষ্ট সার্কেল অফিসে উপস্থিত হতে হয়। স্মার্ট কার্ড wপ্রিন্টিং-এর সমস্ত প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে গ্রাহককে এসএমএস এর মাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হয়।

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র:

  • নির্ধারিত ফরমে আবেদন।
  • রেজিষ্টার্ড ডাক্তার কর্তৃক মেডিকেল সার্টিফিকেট।
  • ন্যাশনাল আইডি কার্ড -এর সত্যায়িত ফটোকপি।
  • শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ;
  • নির্ধারিত ফী জমাদানের রশিদ।
  • পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স-এর জন্য পুলিশি তদন্ত প্রতিবেদন।
  • সদ্য তোলা ১ কপি পাসপোর্ট ও ১কপি স্ট্যাম্প সাইজ ছবি।

 

ডুপ্লিকেট লাইসেন্স প্রাপ্তির প্রক্রিয়া :

Duplicate License Process:

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র:

  • নির্ধারিত ফরমে আবেদন।
  • জিডি কপি ও ট্রাফিক ক্লিয়ারেন্স।
  • নির্ধারিত ফী (হাই সিকিউরিউটি ড্রাইভিং লাইসেন্স এর ক্ষেত্রে ৮৭৫/-টাকা) বিআরটিএ’র নির্ধারিত ব্যাংকে জমাদানের রশিদ।
  • সদ্য তোলা ১ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি।

Check Also

গাড়ি চালানোর জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

গাড়ি চালানোর জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র কি কি?

একজন আদর্শ ড্রাইভার হিসেবে গাড়ি চালানোর জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সর্বমোট ০৬ (ছয়) টি। তন্মধ্যে আপনার …

Leave a Reply

Your email address will not be published.