সেক্সে রাজি করার উপায় কি?

সেক্সে রাজি করার উপায় কি? যৌনমিলন বা সহবাস একটি জৈবিক ক্রিয়া, যেখানে স্বামী-স্ত্রী একে অপরের সাথে অন্তরঙ্গ ঘনিষ্ঠ হয়। যৌন উত্তেজনা মেয়েদের একটু বেশি হলেও সমাজ, পরিবার, আত্মীয় এসবের সমালোচনার স্বীকার হয়ে লজ্জায় বলতে পারে না বা আগ্রহ দেখায় না।

তাই মেয়েদের সহবাসে রাজী করানোর কৌশল বা সেক্সে রাজি করার উপায় জানাটা পুরুষের কাছে খুবই বাঞ্ছনীয়।

প্রত্যেকের ধর্মগ্রন্থ থেকে স্বামী এবং স্ত্রী যৌন মিলন করতে পারে। তবে এটা কোন অবৈধ কাজ নয়, একই কাজ যদি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ না হয়ে করা হয়, সেটাকে ধর্মের বিপরীতে কাজ করা বলা হয়।

তাই কোন ট্রিক্স অথবা কোন সিস্টেম কিংবা কোন মাধ্যম জানলে সেটাকে অবৈধ কিংবা খারাপ পথে ব্যবহার না করে সেটার ভালো ব্যবহার করুন। দেখবেন আপনার জীবনে ভালো দেখে এগিয়ে যাচ্ছে।

কেবলমাত্র আপনার সাথে মাধ্যমে শেয়ার করেছে তবে এই মাধ্যমটি আপনি অবলম্বন করেই যে যে কাউকে সেক্সে রাজি করাতে পারবেন এমন কোন বিষয় না।

হয়তো এই মাধ্যম গুলোর মাধ্যমে আপনি কাউকে রাজি করাতে চেষ্টা করতে পারেন।

মেয়েদের সহবাসে রাজী করানোর কৌশল আয়ত্তে আনার আগে জানতে হবে সহবাসের উপকারীতা,

সহবাসের সঠিক সময় অর্থাৎ একজন পুরুষের মধ্যে সহবাসের জ্ঞান থাকাটা একান্ত জরুরী।

►► ছেলেদের সেক্স ট্যাবলেট এর নাম
►► উত্তেজক ট্যাবলেট এর নাম (দাম সহ)

তাই আজকের আলোচনায় আমরা দেখে নেবো-

  • প্রতিদিন সহবাস বা যৌনমিলন মানসিক শান্তির সাথে সাথে শারীরিক ক্লান্তি কাটিয়ে দেয়।
  • প্রতিদিন সহবাস করলে শরীরে আইজি এ অ্যান্টিবডির সংখ্যা বাড়িয়ে রোগ প্রতিরোধে সক্ষম করে।
  • যৌনমিলনে সময় অর্গাজমের ফলে শরীর এন্ডোরফিনস ক্ষরণ করে যা শরীরের ব্যাথা কমায়।
  • প্রত্যেকবার সহবাসে বা যৌনমিলনে ৮০ ক্যালোরি ক্ষয় হয় যা ওজন কমাতে সাহায্য করে।
  • সপ্তাহে অন্তত ২ দিন সহবাস করলে পুরুষের যেমন হার্ট অ্যাট্যাকের সম্ভাবনা কমিয়ে দেয় তেমনি নারীর ক্ষেত্রে সহবাস চলাকালীন অতিরিক্ত ইস্ট্রোজেন ক্ষরণ হাওয়ায় হার্ট সুস্থ থাকে।
  • যৌনমিলনের পর ঘুম আরাম এবং শান্তির হয় ফলে শরীর অনেক সুস্থ ও ঝরঝরে লাগে।
  • সপ্তাহে অন্তত ৩ বার যৌনমিলন বাহ্যিকভাবে বয়সের বলিরেখা কমাতে সাহায্য করে।

আনন্দ লাভের জন্য

আনন্দলাভের জন্য সেক্সে রাজি করার উপায় কি? প্রথমত আপনি কোন পার্টি অথবা কোথাও যদি গিয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে আপনার যদি ইচ্ছে হয়, এই মুহূর্তে সেক্স-করার-জন্য।

অথবা আপনার যদি সেক্স উত্তেজনা বেড়ে যায় সেক্ষেত্রে আপনি সেখানে থাকা আপনার ক্লায়েন্ট অথবা যার মাধ্যমে আপনি কাজটি সম্পূর্ণ করতে চান তাকে বিষয়টি সম্পূর্ণ ভাবে করতে পারেন.

অথবা আপনি চাইলে টাকার মাধ্যমে এটি করতে পারেন।

তবে টাকার ভালোবাসাটা এতটা আনন্দময় মুহূর্ত কে কাছে টানতে পারে না, অনেক সময়ে এটাকে তোমার মাত্র টাকার মধ্যেই সীমাবদ্ধ রেখে দেয়।

তবে ভালবাসা দিয়ে এটি করা সম্ভব তাই ভালোবাসার মাধ্যমে আপনি এটি সম্পূর্ণ করতে পারেন।

বিভিন্ন পার্টিতে গিয়ে যদি কখনো ইচ্ছে হয় সেক্ষেত্রে আপনি সেখানকার যে নিয়ম আছে সেগুলো ফলো করে আপনি এটি সম্পূর্ণ করতে পারেন।

মনে রাখবেন এটি বারবার করা এবং এটির ফলাফল অনেকটা খারাপ হতে পারে।

পার্টনারকে ধরে রাখার জন্য

অনেক সময়ই নিজের আবেগের চেয়ে বড় হয়ে দাড়ায় পার্টনারকে ধরে রাখার প্রচেষ্টা।

পার্টনারের আবেদনে সাড়া না দিলে সে ছেড়ে চলে যেতে পারে, এইধারণা থেকে অনেক সময়ই অনিচ্ছা সত্ত্বেও সাড়া দেয়।

বিভিন্ন সময়ে ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে ক্লায়েন্টকে ধরে রাখার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করেও যখন ধরে রাখা যায় তখন এই পথকে বেছে নিতে হয়।

(বর্তমানে ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে অনেক বেশী হয়ে থাকে)

ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে ক্লায়েন্ট ধরে রাখা অনেকটা কষ্টকর হয়ে ওঠে তাই আপনি চাইলে নিজেকে বিলিয়ে দিয়ে আপনার ক্লায়েন্টকে রাজি করাতে পারেন।

তবে এটি বৈধ কোনো কাজ নয়। এটি এড়িয়ে চলা বুদ্ধিমানের কাজ।

মনের মানুষ হয়ে উঠুন

মেয়েদের কাছে সেক্স শুধুই দেহের মিলন নয় এর চেয়ে অনেক কিছু। তাই শুধু সেক্স নয়, তার মনে জায়গা করা জরুরি।

মেয়েটির ভালোলাগা জিনিস গুলি আগে জেনে নিন এবং সেই মত তার কাছে হয়ে উঠুন মানে মানুষ।

মনের মানুষ হয়ে উঠতে পারলে আপনার যখন ইচ্ছে আপনি তখনই তার সাথে স্বইচ্ছায় মিলন ঘটাতে পারবেন। এতে কোনো বাধা থাকবে না।

মনের বিরুদ্ধে এটি করতে গেলে অনেক সময় বিভিন্ন ধরনের বিপদের সম্মুখীন হতে হয় তাই মনের বিপক্ষে এটি না করে মনের পক্ষে করার চেষ্টা করুন।

(জোর কিংবা মনের বিপক্ষে না করাই উত্তম)

বিভিন্ন সময়ে মনের বিপক্ষে করতে গেলেও চিৎকার অথবা বিভিন্ন মাধ্যমে নিজেকে শেষ রক্ষা টুকু করা সম্ভব হয় না।

তাই যথা সম্ভব এটি মনের বিপক্ষে না করার চেষ্টা করুন এবং নিজেকে সম্পুর্ন কন্ট্রোল করার চেষ্টা করুন।

►► যৌন মিলন করার পূর্বে কি করবেন
►► হাঁপানী বা অ্যাজমা রোগের সমাধান

স্পর্শ শুরু করুন

কিছুদিন কথা বলার পর ধীরে ধীরে স্পর্শ শুরু করুন। আপনি তার পাশে বসে এবং তার হাঁটু বা কাঁধে আপনার হাত রেখে এটি করেন।

প্রলোভন সম্পূর্ণরূপে গতি উপর নির্ভর করে। এটা খুব তাড়াতাড়ি করলে কাজ নষ্ট হতে পারে। যদি অসস্তি বোধ করে তাহলে সেদিন বাদ দিন।

যাতে আপনি তাকে এট্রাক্টিভ করতে পারেন সে ধরনের কাজকে প্রশ্রয় দিন তার রূপ এবং তার সাজগোজের প্রশংসা করুন।

বিরক্ত বোধ করলেন তখনই কেটে পড়ুন।

স্পর্শ শুরু করুন অতঃপর যখন খেয়াল করবেন তিনি আপনার প্রতি দুর্বল হয়ে যাচ্ছে তখন আপনি এটি করতে দ্বিধাবোধ করবেন না।

তবে কোনো ভাবেই তাকে কোনো কিছু না বলে, অথবা আপনাকে তিনি ভালোবাসেন না, কিংবা আপনার আচার-আচারণও উনি পছন্দ করেনা,

আপনাকে দেখলে তিনি এড়িয়ে চলেন এমন মানুষকে কখনো অ্যাট্রাকটিভ করার চেষ্টা করবেন না। হিতে বিপরীত হয়ে যেতে পারে।

যৌন উত্তেজক কথা

মেয়েটির পছন্দের মানুষ হয়ে ওঠার পর ধীরে ধীরে রাতে দুষ্টুমিভরা কথা বাড়িয়ে দিন।

যৌন উত্তেজক কথাবার্তা শুরু করে তার মনে কামইচ্ছা জাগিয়ে তুলুন। দেখবেন ধীরে ধীরে আপনার সঙ্গীও উত্তেজিত হয়ে উটেছে।

আমাদের এটি একদম কার্যকরি এমন কোন বিষয় না তবে আপনি এই মাধ্যম গুলো ফলো করে দেখতে পারেন হয়তো কাজ হয়ে যেতে পারে।

মানুষের মনের মধ্যে কি রয়েছে সেটা কেবলমাত্র নিজেই জানে তাই সেটা আমাদের এখানে প্রকাশ করার মত কোন শক্তি আমাদের থাকে না।

আমরা কেবল মাত্র মাধ্যমগুলো বলতে পেরেছি তাই মাধ্যমগুলো অবলম্বন করে আপনি চেষ্টা করতে পারেন।

►► অতিরিক্ত পিল খেলে ক্ষতি হতে আগত সন্তানের
►► যৌন মিলন করার পূর্বে কি করবেন

কিছু কথা

সেক্সে রাজি করার উপায় কি? সে বিষয়ে আমরা এতক্ষন আলোচনা করলাম আশাকরি আর্টিকেলটি আপনাকে সহায়তা করবে আপনার কাজটি সম্পূর্ণ করতে।

তবে অনুগ্রহ করে এটি এমন কোন কাজে ব্যবহার করবেন না যাতে আপনার জীবন হুমকির মুখে পড়তে পারে।

যাতে আপনি অনেক বড় ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হন।

সব সময় নিজেকে রক্ষা করে সবকিছু করার চেষ্টা করুন যাতে নিজের জীবন নষ্ট না হয়ে যায় সেদিকে পর্যাপ্ত খেয়াল রাখুন।

জীবনের চেয়ে সেক্স করাটা অনেক বেশি কিছু হতে পারে না তাই সর্বোচ্চ চেষ্টার মাধ্যমে আপনি নিজেকে এটি থেকে লুকিয়ে রাখুন।

অনুগ্রহ করে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন।  আমাদের ফেসবুক পেইজ এ লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন

Leave a Comment