মধুসখার আলাপন – নুর আতিকুন নেছা

মধুসখার আলাপন
–নুর আতিকুন নেছা–

বসন্তী হাওয়ায় মনে দিচ্ছে দোলা। যতটা বসন্তের মূহুর্ত উপভোগ করছি ততটাই মুগ্ধ হচ্ছি।
বিকালবেলা পুকুরপাড়ের চারপাশটায় ঘুরছিলাম। চারপাশের গাছ গুলো যেন নতুনত্ব নিয়ে তৈরি হবার প্রচেষ্টায়। পুরানো পাতা ঝড়ে নতুন রুপে ফিরে আসছে।

শালিক পাখির ঝগড়া, অন্য পাখিদের দুষ্টু মিষ্টি আলাপন। পুকুরপাড়ের ডালিম গাছটার দিলে চেয়ে রইলাম কিছুক্ষণ।
ডালিমের ফুল গুলো যেন আমার চোখের দিকে চেয়ে চেয়ে হাসছে। ফুলের উপর দুটো মৌমাছি মধু সংগ্রহ করছে। অন্যপাশে আমের মুকুলে গাছের অপরূপ সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলছে।গাছটা ঘিরেই রয়েছে আমের মুকুল। ছোট পোকাগুলো মাঝেমাঝে বড্ড জ্বালাতন করছে আমায়।

“কি অপরূপ সৌন্দর্যে ভরা প্রকৃতি আল্লাহর দান”
“সবকিছু অনুভব করেও যেন করিনা আল্লাহকে স্মরণ”।

কি অপরূপ সৌন্দর্যে ভরা প্রকৃতি, সে যেন এক নব বধু রুপে বাংলাকে ঘিরে আছে বসন্তী হাওয়া।
অনুভব করছি, মুগ্ধ হচ্ছি চারপাশটা ঘুরে ঘুরে দেখছিলাম।
হঠাৎ মধুসখার সুর কানে ভেসে আসছে।

►► আরো দেখো: সফটওয়্যার ছাড়া সেকেন্ডেই ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড রিমুভ করুন
►► আরো দেখো: eSIM কি? কিভাবে কাজ করে?

মনে হচ্ছে মধুসখা মিষ্টি সুরে আমাকে ডাকছে।
গাছের চারপাশটাতে খুঁজতে ছিলাম, কিছুক্ষণ পরেই মধুসখার মিষ্টি সুরে আমি মুগ্ধ হয়ে ওর দিকেই চেয়ে রইলাম।
মধুসখার কুহু ডাকে ডাকে আমি ও ওর সাথে খুনসুটি আলাপ করার চেষ্টা করছিলাম।
মধুসখাকে বলতে লাগলাম আচ্ছা মধুসখা!
তুমি প্রতিদিন না এসে শুধু বসন্তে কেন আসো?

নুর আতিকুন নেছা

মধুসখা কুহু বললো। এ যেনো মধুসখা বলতে লাগলো আমি যদি প্রতিদিনই আসতাম তাহলে আর আমার মধুর সুর কেউ মন দিয়ে শুনতোই না। কারো এতটা সময় হতো না। তাইতো প্রতিদিন না এসে বসন্তে আসি।

আমি মধুসখাকে আবার বলতে শুরু করলাম..
আচ্ছা মধুসখা!
তুমি তো কালো!
তারপরেও তোমাকে সবাই ভালোবাসে। তোমার সুরের জন্য অপেক্ষা করে মানুষ…. কিন্তু এই সমাজের কালো মানুষটার কোনো মূল্য নেই। সবাই তাকে কেনো অবহেলা করে?

মধুসখা কুহু বললো।
ওর সুরে জবাব দিলো..আমি কালো কিন্তু আমাকে ভালোবাসে আমার মিষ্টিভাসি সুরের জন্য। ঠিক আমাকে মন দিয়ে উপলব্ধি করে, আমার সুরকে উপলব্ধি করে বলেই আমাকে এতটা ভালোবাসে। তাইতো তোমাদের মাঝে গল্প হয়ে যাই। কিন্তু কাক ও তো কালো, কই কাককে তো সবাই পছন্দ করে না! ঠিক তেমনি এই সমাজের কালো মানুষটাকে কেউ বুঝার চেষ্টা করে না। কারন ওর যে আমার মতো মিষ্টিভাসি সুরটা কেউ শুনতে চায় না। সে নিজ থেকে বুজাতে গেলেও উপলব্ধি করার চেষ্টা করে না। তাইতো আজও এই সমাজের কালো মানুষকে ভালোবাসে না.. অবহেলা করে।

মধুসখাকে বলতে লাগলাম…আচ্ছা মধুসখা!
তুমি রোজ বিকালে এভাবে আমার সাথে আলাপন করো! ভীষন ভালোলাগে তোমার ওই মিষ্টিভাসি সুর। তুমি রোজ বিকালেই এসো। কেমন?

মধুসখা কুহু বললো।
জবাবে মধুসখা বললো আমি তো রোজ না এসে শুধু বসন্তেই তোমার সাথে আলাপন করবো। প্রতিদিন এসে তুমি শত ব্যস্ততায় আমার সুর শোনার সময় থাকবে না। বিরক্ত হবে তুমি। তুমি আমাকে মনে পুষে রেখো। আমি তোমার ভালোলাগার গল্প হয়েই থাকবো।

শেষ বিকালে মধুসখার সাথে মিষ্টি আলাপ বেশ ভালোই লাগলো। মধুসখা কোথায় যে হারিয়ে গেলো চুপটি করে টেরও পেলাম না। সন্ধ্যা ঘনিয়ে আসছে আমি মধুসখাকে ভাবতে ভাবতে পুকুরপাড় থেকে চলে আসলাম।
“ভালোবাসি বাংলাকে, ভালোবাসি বাংলার অপরূপ প্রকৃতিকে ”

Leave a Comment