Terrorism Paragraph বাংলা অর্থসহ

Terrorism Paragraph : Terrorism means the creation of panic and fear among people. It destroys our stability and peace of mind. It has increased rampantly. The terrorists not only create panic but also snatch away valuable lives. They are so powerful that anyone fails to encounter them. Our socio-economic disparity is responsible for this. Unemployment, frustration, poverty, illiteracy, ignorance etc. help to create terrorism in society. Ideological difference, religious disparity, depression, oppression, deprivation etc also create terrorism in the society.

In some cases, political patronage is also responsible behind this wide-spread terrorism. The terrorists get the political umbrella after creating terrorism. This terrorism is prevailing in almost all the countries of the world. The world people feel great headache for this. The UN Secretary General urges the world leaders to curb this all-grasping terrorism. The world people also request the leaders to bridle the terrorists. In this globalized world, the terrorists hide to another country after creating crimes and violence. Thus, everyone must come forward to curb them. Otherwise, our existence will be threatened.

Terrorism Paragraph Topic sentences :

  • Terrorism is a great threat to our modern civilization.
  • It affects us highly.
  • It has increased tremendously.
  • Our socio-economic background contributes to spring it up.
  • It must be stopped for better civilization.

Terrorism Paragraph (সন্ত্রাসবাদ)

সন্ত্রাসবাদ বলতে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক ও ভয় সৃষ্টিকে বুঝায়। এটি আমাদের মনের স্থিরতা ও শান্তি ধ্বংস করে। এটি অনিয়ন্ত্রিতভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। সন্ত্রাসীরা শুধু আতঙ্ক সৃষ্টিই করে না, মানুষের মূল্যবান জীবনও কেড়ে নেয়। তারা এত শক্তিশালী যে যে কেউ তাদের সামনে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অবতীর্ণ হতে ব্যর্থ। আমাদের সামাজিক অর্থনৈতিক বৈষম্য এর জন্য দায়ী। বেকারত্ব, নৈরাশ্য, দরিদ্রতা, নিরক্ষরতা, অজ্ঞতা ইত্যাদি সমাজে সন্ত্রাসবাদ সৃষ্টিতে সহায়তা করছে। ভাবাদর্শিক প্রভেদ, ধর্মীয় বৈষম্য, বিষাদগ্রস্ততা, নিপীড়ন, বঞ্চনা ইত্যাদিও সমাজে সন্ত্রাসবাদ সৃষ্টি করে।

কিছু ঘটনায়, রাজনৈতিক পৃষ্ঠপোষকতাও সন্ত্রাসবাদ ব্যাপক সম্প্রসারণের পেছনে দায়ী। সন্ত্রাসবাদ সৃষ্টির পর, সন্ত্রাসীরা রাজনৈতিক ছত্রছায়া লাভ করে। বিশ্বের প্রায় সকল দেশেই এই সন্ত্রাসবাদ বিরাজমান । বিশ্বের জনগণ এজন্য বড় মাথাব্যাথা অনুভব করছে। জাতিসংঘের মহাসচিব বিশ্ব নেতৃবৃন্দের কাছে আবেদন জানিয়েছেন এ সর্বগ্রাসী সন্ত্রাসবাদের লাগাম ধরতে। বিশ্বের জনগণও নেতৃবৃন্দের কাছে সন্ত্রাসীদের লাগাম (রাস) ধরতে অনুরোধ জানাচ্ছে। এই বিশ্বায়নের দুনিয়ায়, সন্ত্রাসীরা অপরাধ ও সহিংসতা ঘটিয়ে অন্য দেশে আত্মগোপন করে। সুতরাং তাদের লাগাম ধরতে প্রত্যেককে অবশ্যই এগিয়ে আসতে হবে। নতুবা আমাদের অস্তিত্ব হুমকির সম্মুখীন হবে।

আরো প্রাগ্রাফ পড়ুন…

অনুগ্রহ করে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন।  আমাদের ফেসবুক পেইজ এ লাইক দিতে এখানে ক্লিক করুন

Leave a Comment